Select your Top Menu from wp menus
Last updated: 29/03/2021 at 10:14 PM | আজ বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১ বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১ রমজান, ১৪৪২ হিজরি
শিরোনাম

নিয়ামতপুরে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ

শাহজাহান শাজু: নওগাঁর নিয়ামতপুরে যৌতুকের দাবিতে ববিতা আখতার (টুলটুলি) (২৫) নামে এক গৃহবধুকে তাঁর স্বামী নির্যাতন করে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
৩ জুলাই (মঙ্গলবার) রাতে উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের চক গোপালপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকেই স্বামী মামুনুর রশিদ ওরফে মামুন (৩২) পলাতক রয়েছেন।
এ ঘটনায় বুধবার ওই গৃহবধুর বাবা আনিকুল ইসলাম বাদী হয়ে মেয়ের স্বামী মামুননুর রশিদ, মা অলেকজান ও বড়ভাই সেলিম ওরফে সেলুর বিরুদ্ধে নিয়ামতপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, এক বছর আগে উপজেলার চক গোপালপুর গ্রামের আনিকুল ইসলামের মেয়ে ববিতার আখতার টুলটুলির সঙ্গে একই গ্রামের মামুনুর রশিদ ওরফে মামুনের বিয়ে হয়। দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে। বিয়ের কিছু দিন পর থেকেই মামুন যৌতুকের দাবিতে তাঁর স্ত্রীর ওপর নির্যাতন শুরু করে। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত মার্চ মাসে ববিতা তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় নির্যাতনের অভিযোগ করেন। তখন থানা পুলিশের উপস্থিতিতে সালিস বৈঠকে মামুন আর কোনো দিন তাঁর স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালাবেন না বলে অঙ্গীকারনামা দেন। কিন্তু কিছু দিন পর মামুন ববিতাকে বাবার বাড়ি থেকে ২ লাখ টাকা এনে দিতে বলেন। এ নিয়ে প্রায়ই সংসারে ঝগড়া লেগে থাকত ও যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় মামুন প্রায় স্ত্রীকে মারধর করত। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার বিকেলে ববিতাকে মারধর করে বাড়ির কক্ষে আটকে রাখা হয়। এতে এক পর্যায়ে তাঁর স্ত্রীর মৃত্যু হয়। ঘটনার পর থেকেই গৃহবধুর স্বামী পলাতক রয়েছেন। মঙ্গলবার দিবগিত রাত ১০টায় খবর পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে উপ-পরিদর্শক সারোয়ারসহ সঙ্গীয় ফোর্সনিয়ে উপস্থিত হয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।
গৃহবধুর বাবা আনিকুল ইসলাম বলেন, ‘তিন বছর আগে উপজেলার রামনগর গ্রামের এক ছেলের সঙ্গে বিয়ে হয় ববিতার। কিন্তু গত এক বছর আগে ববিতার তাঁর আগের স্বামীর সংসার ছেড়ে মামুনকে বিয়ে করে। তাঁরা দুজন সম্পর্ক করে এই বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকেই আমার মেয়েকে যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকে মেয়ে। আমার টাকা দেওয়ার সামর্থ না থাকায় প্রায়ই মেয়েকে মারধর করত মামুন। সর্বশেষ যৌতুক হিসেবে দাবি করা ২ লাখ টাকা দিনে না পারায় আমার মেয়েকে মেরেই ফেলল।
নিয়ামতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তোরিকুল ইসলাম বলেন, ‘লাশের প্রাথমিক সুরতহালে মাথা ও মুখম-ল সহ শরীরের একাধিক স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তবে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে এটি হত্যাকা- কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।’
তিনি বলেন, এ বিষয়ে ওই গৃহবধুর বাবা বাদী মামলা করেছেন। নওগাঁ সদর হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে মৃতদেহটি হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই গৃহবধুর স্বামী পলাতক রয়েছেন। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

About The Author

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *