Select your Top Menu from wp menus
Last updated: 29/03/2021 at 10:14 PM | আজ মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩০ চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০ শাবান, ১৪৪২ হিজরি
শিরোনাম

পদ্মার দুই তীর মিলবে এক বিন্দুতে

padmaনিউজ ডেস্ক : অবশেষে দেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো পদ্মা বহুমূখী প্রকল্পের মূল সেতু এবং নদী শাসনের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। ১২ ডিসেম্বর (শনিবার) পদ্মার দুই তীর মিলবে এক বিন্দুতে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার দুপুর ১২টায় লৌহজংয়ের মাওয়া পয়েন্টে কাজের উদ্বোধন করবেন।মাওয়া ঘাট থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে পদ্মা নদীর উপরে ৭ নম্বর পিলারে মূল পাইলিং শুরু হবে। এটিই হবে সেতুর প্রথম মূল পাইল ড্রাইভিং। এ লক্ষ্যে এ পয়েন্টে পাইলিং কাজের সরঞ্জামাদি একসাথে স্থাপন করার প্রক্রিয়া প্রায় শেষ পর্যায়ে।
আধা ঘণ্টার পদ্মা সেতুর মূল কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী দোগাছি সার্ভিস এরিয়া-১ এ নামাজ আদায় ও মধাহ্ন ভোজ করবেন।
এরপর দুপুর আড়াইটায় মাওয়া চৌরাস্তা গোল চত্বর সংলগ্ন মেদেনীমন্ডল খান বাড়ি এলাকায় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় ভাষণ দিবেন।
এর পর বিকাল সোয়া ৪টায় প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টার যোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হতে পারেন।
পদ্মা বহুমূখী প্রকল্পের কর্মকর্তারা জানান, পদ্মা সেতুর পাইলগুলোর ১২০ মিটার বা ৪০ তলা ভবনের সমান কাঠামো পানির নিচে থাকবে। সব মিলিয়ে সেতুটির একেকটি পাইলের দৈর্ঘ্য হবে ১৫০ মিটার। পদ্মা নদীর গর্ভে মাটিতে কাঁদার পরিমাণ বেশি। তাই এর চাপ ধারণ ক্ষমতা কম। পাইলগুলো এত গভীরে যাওয়ার এটা একটা বড় কারণ।
পাইলগুলো আকারে হবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় যা রের্কড সৃষ্টি করবে। এর আগে নদীর ওপর সারি সারি ৩.৪ টি প্ল্যাটফর্ম নির্মাণ করা হয়েছে।
এছাড়া নদী তীর থেকে ১০০০ টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন বিশাল ক্রেনের মাধ্যমে মালপত্র উঠানামার কাজ চলছে। এতে করে পিলারের চতুর্দিককে ঘিরে নানা কর্মযজ্ঞ চলছে।
মূল সেতুর কাজের প্রস্তুতির সঙ্গে সঙ্গে পদ্মা নদীর দুই পাড়ে সেতুর সংযোগ স্থাপনের জন্য রাস্তা নির্মাণ, মাঝনদীতে মাটি পরীক্ষার কাজ চলছে পুরোদমে। প্রকল্প এলাকার দুইপারে দেশী বিদেশী এবং সবমিলিয়ে সামরিক বেসামরিক প্রায় সাড়ে ৮ হাজার শ্রমিক এখন কাজ করছেন এখানে।
জার্মান থেকে মূল পাইলের হ্যামার মাওয়ায় পৌঁছার পর এই প্রস্তুতি জোড়ালোভাবে বেড়ে গেছে।
সিডিউল অনুযায়ী চার বছরের পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছে এই কাজ। ইতোমধ্যে সেতুর কাজের অগ্রগতি হয়েছে ১৬.৪৬ শতাংশ। সব মিলিয়ে মূল সেতুর কাজ হয়েছে ২৭ শতাংশ জানান সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুন্সীগঞ্জে আগমন উপলক্ষে লৌহজংয়ে সাজ সাজ রব বিরাজ করছে। এ উপলক্ষে ষ্টেজ ও তোরণ নির্মাণসহ ব্যাপক প্রস্তুতি এবং নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। স্থানীয় আওযামী লীগ, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তর কাজ করে যাচ্ছেন।
এদিকে এ সেতুকে কেন্দ্র করে লৌহজং সর্বত্র বইছে আনন্দ। স্থানীয় নেতা কর্মীদের মধ্যে প্রাণ চাঞ্চল্যে সৃস্টি হয়েছে। জনসভায় লৌহজং, শ্রীনগর, সিরাজদিখান, টঙ্গীবাড়িসহ মুন্সীগঞ্জ জেলার সর্বস্তরের মানুষের উপস্থিতি থাকবে এ আশা প্রকাশ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

About The Author

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *